উদ্বোধনের অপেক্ষায় গোপালগঞ্জ শেখ সায়েরা খাতুন নার্সিং কলেজ

রাজিয়া সুলতানা:
গোপালগঞ্জে তেরো লাখ মানুষের স্বাস্থ্যসেবার জন্য শেখ সাহেরা খাতুন মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল নির্মান করা হয়। এর সঙ্গে কিছুদিনের মধ্যেই যোগ হতে যাচ্ছে গোপালগঞ্জ সায়েরা খাতুন নার্সিং কলেজ।

এর প্রথমে ভিত্তি প্রস্তুর করা হয় ২০১৮ সালে। কাজও দ্রুত শুরু হয়। হটাৎ করে নির্মান প্রতিষ্ঠানের ঠিকাদার মৃত্যু বরন করলে কাজ বন্ধ হয়ে যায়। পরে নতুন টেন্ডার করে ২০২২ সালে দ্বিতীয় মেয়াদে স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর প্রায় ৬ একর জমির উপরে ২৪ কোটি ৬৮ লাখ টাকা ব্যয়ে এ কলেজের নির্মাণ কাজ শুরু করে। এখন এর উদ্বোধন শুধু সময়ের অপেক্ষা।
এ নার্সিং কলেজটি চালু হলে কর্মরত নার্সদের পাশাপাশি শিক্ষানোবিশ নার্সদের সেবাও পাবেন রোগীরা। অন্যদিকে শিক্ষাগত যোগ্যতা থাকা সত্তে¡ও পরিবারের আর্থিক সঙ্গতি না থাকায় যাদের পক্ষে ঢাকায় গিয়ে নার্সিং পড়া সম্ভব হতো না, তারা এখন সরকারি খরচেই বিএসসি নার্সিং পড়ার সুযোগ পাবেন। এরই মধ্যে কলেজের ৯টি ভবনের কাজ শেষ হয়েছে। কিছুদিনের মধ্যে নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান কাজটি হস্তান্তর করবে বলে জানান কর্মকর্তারা।

মেডিকেল কলেজের সীমানার ভেতরেই নির্মাণ করা হয়েছে কলেজের বিভিন্ন ভবন। প্রতি সেশনে ১২০ জন করে শিক্ষার্থী শিক্ষা লাভের সুযোগ পাবে। এখানে এক সাথে ৩৬০ জন শিক্ষার্থী আবাসিক ভাবে অবস্থান করে শিক্ষা গ্রহণ করবে।
শেখ সায়েরা খাতুন নাসিং কলেজ ভবন নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স শরীফ সন্স এন্ড জেবি এর কর্মকর্তা সৈয়দ গোলাম মোস্তফা টিটু বলেন, এরই মধ্যে এ কলেজের চারতলা একাডেমিক ভবন সহ ৯টি ভবনের কাজ সম্পূর্ণ শেষ হয়েছে। কর্তৃৃপক্ষ ইচ্ছা করলেই এখন ভবনগুলো বুঝে নিয়ে উদ্বোধন করতে পারেন।

সবকিছু মিলিয়ে নার্সিং কলেজটি চালু হলে স্বাস্থ্যসেবায় আমুল পরিবর্তন ঘটবে। তাই দ্রæত ভবনগুলো উদ্বোধন করে কাযক্রম শুরু হবে এমনটা আশা করছেন স্থানীয়রা।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*