গোপালগঞ্জে বিদ্যুতের ভেল্কিবাজি

 

গোপালগঞ্জ :
কয়েকদিন বিদ্যুৎ সরবরাহ ব্যবস্থা সন্তোষ জনক থাকার পর আবারও গোপালগঞ্জ জেলায় বিদ্যুতের লুকোচুরি খেলা শুরু হয়েছে। প্রতিদিন লোড শেডিং করা হচ্ছে। এর পাশাপাশি চলছে লো ভোল্টেজের ভেল্কিবাজি। লো ভোল্টেজের কারণে লাইট জ্বলেনা, ফ্রিজ চলেনা। আর ছাত্র ছাত্রীদের পড়া শোনা ব্যহত হচ্ছে। ছেলেমেয়েরা ঠিকমত পড়াশোনা করতে পারছে না। লোড শেডিং হচ্ছে প্রতিদিন সকাল থেকে সারারাত। শান্তিতে কোন কাজ করা সম্ভব হচ্ছে না। রাতে একটু শান্তিতে ঘুমানোর উপায় নাই। সন্ধ্যার সময় ও সন্ধ্যার পরে যে সময় ছাত্র ছাত্রীদের পড়ার সময় ঠিক তখনই হচ্ছে লোড শেডিং। এছাড়া প্রতিদিন প্রায় ১০ থেকে ১৫ বার লোড শেডিং দিয়ে থাকে। এ লোড শেডিং এর জন্য ব্যবসা বানিজ্য যেমন ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে তেমনি ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে জনজীবন। গরমে এ যেন অস্বস্তিকর অবস্থা। এমনিতেই গরমে মানুষের জীবন অতিষ্ট।
গোপালগঞ্জে শুক্র ও শনিবার আসলেই বিদ্যুৎ থাকে না। উন্নয়ন মুলক কাজ চলছে এই অজুহাতে বন্ধ থাকে বিদ্যুৎ। আর এর সাথে লোডশেডিং তো আছেই । গোপালগঞ্জ শহরে বিদ্যুৎ গ্রাহক রয়েছে ২১ হাজার আর সংযোগ রয়েছে ২৫ হাজারের চেয়েও বেশি।
এদিকে বর্তমানে পা-চালিত গতির রিকশায় উঠেছে বৈদ্যুতিক চার্জার ব্যাটারি। সারা দিন রাস্তায় হাঁকিয়ে চলে এ ব্যটারিচালিত রিকশা। এসব ব্যাটারিতে রাতে চার্জ দেয়া হচ্ছে আবাসিক গ্রাহকদের বাসায়। প্রতিদিন লোড শেডিং করা হচ্ছে। এ বিষয় বিদ্যুৎ বিভাগের , নির্বাহী প্রকৌশলী, মো: জাজাঙ্গীর হোসেন সাথে বার বার ফোনে কথা বলার চেষ্টা করেও পাওয়া যায়নি।

নোটিশ

অনুমতি ব্যাতিত এই সাইটের কোন লেখা বা ছবি কপি করা নিষেধ, কপি করলে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।