গোপালগঞ্জের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মা-বাবাদের পা-ধোয়ে দিলেন দুই লাখ শিক্ষার্থী

গোপালগঞ্জ :
“গুরুজনে কর নতি”-এই শ্লোগানকে সামনে রেখে গোপালগঞ্জের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মা-বাবাদের পা-ধোয়ানো কর্মসূচী পালিত হায়েছে।এ কর্মসূচীতে ১১শ’টি প্রাথমিক, উচ্চবিদ্যালয় ও মাদ্রাসার প্রায় দুই লাখ শিক্ষার্থী অংশ নেয়।

আজ রোববার এক যোগে সকাল ১০টায় জেলার সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এই কর্মসচী পালন করা হয়।এর আগে স্ব-স্ব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সকালে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মোখলেসুর রহমান সরকার যুগশিখা উচ্চ বিদ্যালয়য়ে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান চৌধুরী এমদাদুল হক, জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক মাহাবুব আলী খান , আব্দুল জলিল খান সহ বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষ।

পরে বীনাপানী সকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, এস এম মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, বায়রগাতি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, এস এম মডেল উচ্চ বিদ্যালয়, গোপালগঞ্জ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়,উহাব আদর্ম উচ্চ বিদ্যালয়, সরকারি টেকনিকেল স্কুল এন্ড কলেজ,যুগশিখা প্রাথমিক বিদ্যালয়,স্বর্ণকলি উচ্চ বিদ্যালয়,নতুন স্কুল,শেখ রাসেল উচ্চ বিদ্যালয় সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আলোচনা সভায় জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

ব্যাপক উৎসাহ উদ্দিপনার মধ্য দিয়ে জেলার সর্বত্র শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলিতে এ কর্মসূচী পালন করা হয়। জেলাপ্রশাসক মোহাম্মদ মোখলেসুর রহমান সরকার জানান, জেলার প্রায় দুই লাখ শিক্ষার্থী বাবা-মায়ের পা ধোয়ানো অনুষ্ঠানে যোগ দেয়। এতে করে শিক্ষার্থীরা তাদের গুরুজনদেরকে সম্মান করতে শিখবে বলে তিনি মনে করেন। উল্লেখ্য,গত বছর থেকে জেলার সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এ ধরনের অনুষ্ঠান শুরু হয়েছে।

নোটিশ

অনুমতি ব্যাতিত এই সাইটের কোন লেখা বা ছবি কপি করা নিষেধ, কপি করলে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

1 Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*